মেনু নির্বাচন করুন

বাঁকড়া,জে,কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়

এসো বাঁকড়ার টানে, মিলি প্রাণে প্রাণে-এ স্লোগানে ৭৫ বছর পূর্তিতে বাঁকড়ার প্রাচীনতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাঁকড়া জোনাব আলী খাঁন (জে.কে) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের হীরক জয়ন্তী উদযাপন করা হচ্ছে। অনুষ্ঠান উপলক্ষে ঝিকরগাছার বাঁকড়া জনপদে উৎসবমূখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। দুই হাজারের অধিক প্রাক্তন ছাত্রছাত্রী রেজিস্ট্রেশন করেছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশবরেণ্য বেতার, টিভির সঙ্গীত শিল্পী নকুল কুমার বিশ্বাস। কয়েক প্রজন্মের প্রাক্তন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর উপস্থিত থাকার পাশাপাশি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা কাল থেকে প্রতিষ্ঠাতা পরিচালনা পরিষদে নেতৃত্ব দেওয়া ব্যক্তি, শিক্ষকদের স্মরণ করা হবে ।
বিদ্যালয়ের ৭৫ বছরের ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা গেছে, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের স্মৃতি ধন্য কপোতাক্ষ নদের বাঁকে বাঁকড়া নদ কেন্দ্রিক ব্যবসা সমৃন্ধ এ নগরে শিক্ষা প্রসারে বাঁকড়া ইউনিয়ন বোর্ডের বৃটিশ আমলের ইউনিয়ন প্রেসিডেন্ট জোনাব আলি খাঁন বিগত শতাব্দির ১৯৩৮ সালের ২ মার্চ ছয় একর সতের শতক জমি দান করেন স্কুল, প্লেগ্রাউ-ও এগ্রিকালসার অফিসের নামে। একই দাতা দ্বিতীয় দফায় ১৯৫২ সালে বাঁকড়া জে.কে এম.ই স্কুলের নামে এক একর ২৮ শতক জমি দান করেন। ইম.ই স্কুলের প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করা হয় ১৯৪৩ সালে। কপোতাক্ষ তীর জোনাব আলী খানের বাসভবনে প্রথমে বিদ্যালয়ের কার্য পরিচালিত হতো। বিদ্যালয়টির যাত্রা শুরু হয় তিনজন শিক্ষক নিয়ে। ১৯৪৯ সালের ৯ মার্চ এক পরিদর্শনে জুনিয়র জে.কে.ইম.ই স্কুলের প্রস্তাবনা করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় আধুনিক বাঁকড়ার রূপকার দুই সতীর্থ গণপরিষদ ও প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য, সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য আবুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. গোলাম সরোয়ার এলাকাবাসীকে একত্রিত করে এ বিদ্যালয়কে স্বাধীনতা পূর্ব ও পরবর্তীতে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যান। জে.কে হাই স্কুল প্রতিষ্ঠায় জোনাব আলী খাঁনের পুত্র আলাউদ্দিন খাঁন ১৯৬৬ সালে ১ একর ২৪ শতক জমি বিদ্যালয়ের নামে দান করেন এবং বিদ্যালয়ের একক প্রতিষ্ঠাতা হন। প্রতিষ্ঠাতা আলাউদ্দিন খাঁন এই বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন। এ দিকে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র বর্তমান সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম মনির বিদ্যালয়ের ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। চারতলা মনিরুল ইসলাম একডেমি ভবন, পুরাতন ভবন সস্প্রসার ও দ্বিতল, বাঁকড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার কাম-স্থায়ী মঞ্চ নির্মাণ, রাস্তা বিদ্যালয়টির ভৌগলিক অবস্থা পাল্টে দিয়েছেন।
আজ ৭৫ বছরের হীরক জয়ন্তি উৎসব বাস্তবায়নের মাধ্যে দিয়ে বাঁকড়া অঞ্চলের গৌরবময় ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা হবে। বাঁকড়া জে.কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে ও প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সহযোগিতায় হীরক জয়ন্তী উপলক্ষে ব্যাপক কর্মসুচি গ্রহণ করা হয়েছে। সকাল ৯ টায় হীরক জয়ন্তী র‌্যালী, নবনির্মিত চারতলা ভবনের উদ্বোধন ও দোয়া, আলোচনা সভা, বিকাল ৫ টায় মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ডিসপ্লে এবং সন্ধ্যা ৭ টা থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দেশ বরণ্য শিল্পি নকুল কুমার অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করবেন। সার্বিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন, স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র যশোর-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির। বিশেষ অতিথি থাকবেন সাবেক প্রধান শিক্ষক ও সাবেক সহকারী সচিব গোলাম মহিউদ্দীন, সাবেক প্রধান শিক্ষক গোলাম রসুল, আব্দুস সাত্তার, অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক আছিরউদ্দীন, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সভাপতি ও প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের অবসরপ্রাপ্ত পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা ড. মহাসিন আলী, অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক, ওলিয়ার রহমান, যশোর মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক অর্থোপেডিক সার্জন ডা. এএইচএম আব্দুর রউফ, প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও গ্রামীণ ব্যাংকের সিনিয়ন প্রিন্সিপাল অফিসার মোসলেম আলী, প্রাক্তন ছাত্র কুয়েটের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ইঞ্জিনিয়ার ড. এমএমএ হাসেম ও গৃহ ও গণপূর্ত বিভাগের উপসচিব জিল্লুর রহমান। সমগ্র অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করবেন বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইবাদ আলী।


Share with :

Facebook Twitter